Blog Stats

  • 1,241 hits

বিবাহ

বিবাহে মজা নাই,
আছে শুধু জ্বালা!
না চাইলেও গলায় ঝুলে থাকে,
কাঁটা তারের মালা।

খোলা যায় না, ফেলা যায় না,
করে চলেই রক্তাক্ত
ব্যাথ্যায় যতই কুঁকড়ান,
মুখে হবে না তা প্রত্যক্ষ।

যদি বলি বিবাহ করিস না ভাই,
রেগে যাবেন আপনি।
কষ্টের আগুনে না পুড়ে মরলে,
‘মানুষ’ তাকে বলা যাবে কি!

 

http://shoily.com/?p=11934

চাঁদ মেঠো পথে

গতকাল রাতের আকাশে চাঁদ
প্রতিদিন যেমন উঠে,
প্রিয়ার মন দারুন আনচান
কিছুতে আর সইছিল না, বটে!

প্রেমিকের কাছে যাবে
সে, ঘর থেকে বের হল,
মেঠো পথে একাকী চাঁদ
পিতার হাতে ধরা পড়ে গেল!

 

http://shoily.com/?p=11673

 

ছেলেটি আর লিখতে পারছে না!

কি প্রাণবন্ত ছেলে ছিল রে!
কি দারুণ সব ব্লগ লিখতো!
কত কি বিষয়, কত কি তথ্য, ভালবাসা!
কত শত কথা, কত শত হাসি তামাশা!

যাত্রা শুরু: ২০১০-১১-১৯, প্রকাশিত পোস্ট: ৩৬৭!
মিডিয়া আপলোড: ১১৪, মন্তব্যকৃত পোস্ট: ৪৫৩৪!
প্রায় দেড় বছরেই ছেলেটি,
নজর কেড়ে সাইক্লোন তুলেছিল!

মন্তব্য করেছেন: ৮৭২৪,
অন্যের পোস্টে : ৫৯০৪,
মন্তব্য দিয়েছেন : ৪০৩ জনকে
এত উদার ছেলে কি আর হয়!

মন্তব্য পেয়েছেন: ৮৪৮৯,
নিজেরগুলো বাদে: ৫৬৬৯,
মন্তব্য পেয়েছেন : ২৬৬ জনের,
সেকি জনপ্রিয় ছেলে নয়!

এমন ছেলের কি এমন হাল হল!
ছেলেটি কেন আর লিখতে পারছে না!
ছেলেটি কেন আর কোন বিষয় খুঁজে পাচ্ছে না!
সাইক্লোনের উন্মাত্ততা কেন আর আসছে না!

হায় বিবাহ!
তুমি আর এই বাংলায় এসো না!
আমাদের লক্ষী সোনামানিকদের,
কাছ থেকে আর কেড়ে নিও না!

হায় বিবাহ!
তুমি আর এই শব্দনীড়ে এসো না!
আমাদের বন্ধুদের,
হৃদয় থেকে আর তুলে নিও না!

হায় বিবাহ! তুমি থাক তোমার জায়গায়!
তোমায় শব্দনীড়ের ভালবাসার কসম।
আমাদের সোনামানিক বন্ধুকে ফিরিয়ে দাও।
নইলে হরতাল, অবরোধ ও আগুন জ্বালাবো!

ছেলেটিকে অবসর সময় দাও,
ছেলেটিকে লেখার বিষয় দাও!

[ঢাকা, মঙ্গলবার ১২ জুন ২০১২, ২৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪১৯, গ্রীষ্মকাল, ২.০৯ মিনিট]

এই সময়ের নগর

লিখেছেনঃ সাহাদাত উদরাজী (তারিখঃ ১২ এপ্রিল ২০১২, ৯:২৬ অপরাহ্ন)

রাস্তা ঘাটে আর পারছি না
দাঁড়াতে দুই পায়ে,
তেলে তেলে পিচ্ছিল
বন্যা, এ কোন সমুদ্র জয়ে!

ওরে ও তালাতো ভাই বাবুল
তুই একি করছিস ভুল,
জোর করে কিলিয়ে কি বানানো যায়
রবীন্দ্র ঠাকুর কিংবা নজরুল!

অভাবে স্বভাব নষ্ট, বুঝবে
যদি হও দারিদ্রতায় কাবু
চোরের মার বড় গলা
দেখো, কি বলছেন সুরঞ্জিত বাবু!

ছেলে বুড়ো কে আছিস
আমাকে এসে ধর,
চেয়ার ভেঙ্গে পড়ে গেলাম
না হাসলে দূরে গিয়া ‘মর’!

এই সময়ের নগর
আছে মনঃপীড়ায়,
বুঝি কি কষ্টে প্রতিদিন

আমাদের বাসর সাঁজায়!

 

http://tinyurl.com/6qtj9zf

আমি ও আমার বেয়াড়া গরু

লিখেছেনঃ সাহাদাত উদরাজী (তারিখঃ ১ মে ২০১১, ৮:২৩ অপরাহ্ন)

আমি এক বেয়াড়া গরু পালি, আজ অনেক বছর
সকালে ঘুম থেকে উঠে নিজে না খেয়ে, আগে তার খাবার সাজাই
নিজে মুখ ধোয়ার আগেই,
তার গামলায় পানি আছে কি না দেখি।

খইল, ভূশি ও শুকানো ঘাস কেটে তার পিপা
তৈরী করি সযত্বে, অফিসে যাবার আগে।
অফিসে বসে কাজের ফাঁকেও মাঝে মাঝে তার
শরীরের খেয়াল রাখি, ফোন করি।

অফিস থেকে ফিরে কাপড় বদলেই,
আগে তার দিকে তাকাই, চোহারা মলিন কিনা,
হাত ডুবিয়ে দেখি, পিপায় পানি আছে কি না।
রাঙ্গা চোখ দেখে গলায় হাত বুলাই, আদর করি।

রাতে শোবার আগে, আবারো তার কাছে ফিরে যাই,
দরজা, জানালা বন্দ আছে কিনা, মশা তাড়াতে কয়েল জ্বালাই
আগামী কালের মেনু তৈরী করি মনে মনে,
ঘুম থেকে উঠেই যেতে হবে, চরে – ক’দিন সবুজ ঘাস নেই ঘরে।

যখনই চোখ দুটো লেগে আসে, তার হাম্বা ডাকে উঠে দাঁড়াই।
কাছে যাই, কি আনন্দিত আমার রুপসী বেয়াড়া গরু!
এই মধ্যরাতে আমাকে জ্বলাত্বন করে, কি সুখ সে পায়,
ফিরে আবার চোখ মুদি, আবার হাম্বা, এভাবেই রাত কাটে!

এই আমার বোয়াড়া গরু,
আমি ভালবাসি বলে
আমাকে জ্বালিয়েই তার সমস্ত আনন্দ
আমাকে জ্বালিয়েই বুঝি তার সুখ!

বেয়াড়া গরু বুঝে গেছে, তাকে ছাড়া আমি বাঁচব না,
বেয়াড়া গরু বুঝে গেছে, তার পিছনে পড়া থাকাই আমার সাধনা।
বেয়াড়া গরু বুঝে গেছে, আমার জীবনের মূল্য,
বেয়াড়া গরু বুঝে গেছে, তাকে ছাড়া আমার জীবন শুন্য!

 

প্রথম প্রকাশঃ চতুর http://tinyurl.com/3gxjya9

 

কুকুর কিংবা কাজের লোক

লিখেছেনঃ সাহাদাত উদরাজী (তারিখঃ ৭ অক্টোবর ২০১১, ১২:৫১ অপরাহ্ন)

আয়নায় নিজকে নিয়ে দাঁড়াই, কাপড় ফেলে
খুটিয়ে খুটিয়ে দেখি সারা শরীর!
লোমের শরীর, ত্বকে কালচে দাগ
মনে হয় আমি কুকুর কিংবা কাজের লোক!

রাতে রাস্তায় ফুটপাতে দাঁড়িয়ে, ক্লান্তিতে
ভাবি আজ আমার সারা দিনের কর্মকান্ড
অভাবে দুপুরে খাওয়া হয়নি, বিকেলে এক কাপ চা শুধু
মনে হয় আমি কুকুর কিংবা কাজের লোক!

গত কয় বছরে আমার বেতন এক কানা কড়িও বাড়ে নাই
অথচ বয়স বাড়া ঠেকাতে আমার প্রয়োজন ভাল খাবার
কাকে বলি, দ্রব্য মূল্যের চাপে আমি দিশেহারা
মনে হয় আমি কুকুর কিংবা কাজের লোক!

মাঝ রাতে স্ত্রীর কাছে ফিরে যাই, ঘুমিয়ে গেলে বাঁচি
নতুবা তিনি জেগে থাকলেই আমার জবাবদীহিতা,
যেন পুরা পৃথিবীর ভুলের নমুনা আমি একাই
মনে পড়ে, আমি কুকুর কিংবা কাজের লোক!

স্বাধীন দেশে এটা কি আমার বাঁচার অধিকার
ক্ষমতাশীনদের চকচকে চোহারা দেখে, ভাষা শুনে
আমি ভাবি বুঝি, ওরা আমার কেহ নয় – সুখ বা দুঃখের
বার বার মনে হয় আমি কুকুর কিংবা কাজের লোক!

কুকুর কিংবা কাজের লোক, দরজায় দাঁড়িয়ে থাকে
কখন তাকে ভিতরে আসতে বলা হবে!
কুকুর কিংবা কাজের লোক, দরজায় দাঁড়িয়ে থাকে
ভাবে, কখন তাকে খেতে দেয়া হবে!

প্রথম প্রকাশঃ চতুর http://tinyurl.com/44bjqsr

কবিতার সাথে ছবি

লিখেছেনঃ সাহাদাত উদরাজী (তারিখঃ ১৪ জানুয়ারি ২০১১, ১:৩১ অপরাহ্ন)

আজকাল কবিতার সাথে ছবি,
এটা এখন অনেক কবির হবি।
মাঝে মাঝে আমিও ভাবি,
মন্তব্যেও দিয়ে দিবো ছবি।

কবিতার সাথে যদি ছবি থাকে
কবিতা কি ভাল লাগে!
কবিতা লিখে কবি সন্তুষ্টু নন,
ছবি দেখিয়ে নূতন মনরোঞ্জন!

আমি বসে ভাবি,
হায় কবি, হায় কবি!

প্রথম প্রকাশঃ চতুর http://tinyurl.com/64mapn6